ধন্যপুর মাদরাসার ২৪ সালা দস্তারবন্দী মহাসম্মেলন


[লিখেছেন #, January 24, 2019 11:35 pm ]

ধন্যপুর মাদরাসা

আল্লামা হাফেজ আনছার উদ্দীন রহ প্রতিষ্ঠিত নোয়াখালীর ঐতিহ্যবাহী অন্যতম দীনি বিদ্যাপীঠ জামিয়া মিফতাহুল উলুম,ধন্যপুর মাদরাসার ২দিন ব্যাপী দস্তারবন্দী মহা সম্মেলনের প্রস্তুতি চলছে।

এ পর্যন্ত জামিয়া থেকে ফারেগ হওয়া শত শত আলেম,হাফেজদেরকে একত্রিত করে বিশেষ সম্মননা প্রদান করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে জামিয়ার কর্তপক্ষ। সে লক্ষ্যে সম্মেলন বাস্তবায়ন কমিটি ও আসাতেযায়ে কেরামের অক্লান্ত  মেহনতও চলছে জোরালোভাবে। এবং দেশে ও দেশের বাইরে থাকা প্রাক্তন/ফারেগিনদের সঙ্গে যোগাযোগ ও আলোচনা করছে দায়িত্বশীলরা।

সম্মেলনে দাওয়াতি মেহমানদের আগমনে উৎফুল্ল সবাই। এই প্রথম নোয়াখালীতে এক সাথে দেশ-বিদেশ থেকে আগত আন্তরজাতিক মানের উল্লেখ যোগ্য বক্তা ও ওলামায়ে কেরামের সমাগমন। সব চেয়ে বেশী চমকধার হল হেফাজত আমীর আল্লামা শাহ আহমদ শফীর আগমন। ২দিন ব্যাপী সম্মেলনকে ঘেরে মানুষের আনন্দ আলোচনার শেষ নেই। হাট বাজারে চায়ের দোকানে উৎফুল মানুষের মুখে সম্মেলনের প্রচার-প্রসার বইতে লাগল। সময়ের গণনায় সম্মেলন যত নিকটে আসছে তত মানুষে র আনন্দ বাড়ছে। সম্মেলনের পেষ্টুন, পোষ্টারে দখল করে নিয়েছে অলিগলি। ফেইসবুক সহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম গুলোতেও দেখা যায় ভক্তবৃন্দের সম্মেলনকে নিয়ে প্রচারনা ষ্ট্যাটাস শেষ নেই। অনেকে নিজের প্রোপাইল পিক চেইঞ্জ করল আহুত সম্মেলের পোষ্টারের ছবি ‍দিয়ে।

বাংলাদেশর শ্রদ্বাভাজন আলেম হাফেজ মাও.আনছার উদ্দীন রহ., রাসুল (স.)এর নৈতিকতা ও আদর্শ চরিত্র গঠনের নিয়তেই ১৯৮২ সালে প্রতিষ্ঠা করেন, জামিয়া মিফতাহুল উলুম,ধন্যপুর মাদরাসা এবং নাম করন করেন হাফেজ মুহাম্মদ উল্লাহ হাফেজ্জী হুজুর রহ.। সেই বরকত থেকে অবদি আজ  পর্যন্ত  এক অনবদ্য উজ্জল নাম জামিয়া মিফতাহুল উলুম (ধন্যপুর মাদরাসা) ৷

হুজুরের দৃপ্ত পরিচালনায় এবং আল্লাহ তায়ালার অশেষ মেহেরবাণীতে অল্প দিনের মধ্যে স্থাপন করেছে অবিস্মরণীয় মাইলফলক।এবং উল্লেখযোগ্য শিক্ষার, প্রশংসিত মানের কারনে নোয়াখালীর অন্যতম শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান হিসেবে বিবেচনা করা হয়।

 

অত্র প্রতিষ্ঠানটি যোগ্য ছাত্র গড়ার মাধ্যমে ইসলাম ও জাতির প্রয়োজন পূরণে ভূমিকা রেখে চলছে, বাংলাদেশের বহু জায়গায় বহু জনপদে মাদরাসা প্রতিষ্ঠা করা ও মাদরাসা পরিচালনার দায়িত্বে আল্লাহ তায়ালা এই প্রতিষ্ঠানের ফারেগীনদের  কবুল করেছেন।

 

তাই, আগামী ৩০ ও ৩১ জানুয়ারী’১৯ বুধ ও বৃহঃপ্রতিবার জামিয়া মিফতাহুল উলুম ধন্যপুর মাদরাসার ফারেগীন ও প্রাক্তন ছাত্রদের নিয়ে অনুষ্ঠিত হবে স্মরণকালের এ দস্তারবন্দী  মহাসম্মেলন ৷ এ লক্ষ্যে ইতিমধ্যে গঠন করা হয়েছে সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটি৷ যারা সম্মেলন সফল করতে খাটছেন দিন রাত।

২ দিন ব্যাপী দস্তাবন্দী সম্মেলন সম্পর্কে অত্র মাদরাসার বর্তমান পরিচালক মাও.ইয়াকুব আলজামীল দা.বা. বলেন,আমাদের মাদরাসা থেকে এপর্যন্ত যারা ফারেগ হয়েছেন তাদের অধিকাংশই বিভিন্ন মাদরাসা পরিচালনা করছেন, বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান প্রধানের দায়িত্বে আছেন। তাদের সবাইকে এক  করা , ওলামায়ে কেরামের মুখ থেকে কিছু নসীহত শুনা এবং দ্বীনের প্রচারের জন্য এই সম্মেলনের লক্ষ।

মরহুম হুজুরের ছেলে বর্তমান সহ-কারী পরিচালক পদে যিনি রয়েছেন মাও. ইমাদ উদ্দীন বলেন, সবার মধ্যে সম্প্রীতি, একে অপরের প্রতি সহযোগী মনোভাব এবং শিক্ষক ছাত্রের মধ্যে যোগাযোগ বৃদ্ধির জন্যও  এ সম্মেলন সহায়ক। এবং মরহুম হুজুরেরও ইচ্ছা ছিল এরকম একটি সম্মেলন করার আজ হুজুর আমাদের মাঝে নাই, হুজুরের স্বপ্ন বাস্তবায়ন হল।এর আগে কয়েকবার দস্তারবন্দী সম্মেলন করার উদ্যোগ করলেও বিভিন্ন কারনে সম্ভব হয়নি।

তিনি আরো বলেন,শ্রোতা-দর্শকদ,ও ছাত্রদের জন্য আরেকটি চমকপ্রদ সুখবর হল আমাদের দীর্ঘ সাধনার ফসল-তথ্য নির্ভর ‘‘আল আনছার স্মরনীকা” এই মনোমুগ্ধকর কভার সংবলিত আল আনছার স্মরনীকার মোড়ক উন্মোচন হবে এই দস্তারবন্দী সম্মেলনের প্রথম দিনে। যা পাওয়া যাবে মাদরাসায় ও সম্মেলন কেন্দ্রীক নির্ধাারিত স্টল গুলোতে।

উল্লেখ্য, জামিয়া মিফতাহুল উলুম ধন্যপুর মাদরাসার ২দিন ব্যাপী দস্তারবন্দী  মহাসম্মেলননের সকল কার্যক্রমকে সফল করার জন্য আহ্বান রইল। এবং সকল তথ্যের জন্য অথবা সম্মেলন বিষয়ক সংক্রান্ত বা যে কোন প্রয়োজনে যোগাযোগের করুন।

পরিচালক        : +88 01715376059

শিক্ষা সচিব      : +88 01711117797

সহকারী পরিচালক : +88 01835010616

সম্মেল সংক্রান্ত    : +88 01828400140